1. admin@dailygoraishobvotha.com : dailygorai : Salim Takku
শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ০২:০৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট করোনায় আক্রান্ত- গড়াই সভ্যতা কুষ্টিয়ায় শশুর বাড়িতে জামাইয়ের রহস্যজনক মৃত্যু !-গড়াই সভ্যতা কুষ্টিয়ায় বিধান হত্যায় জড়িতদের দ্রুত বিচার ও ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন- গড়াই সভ্যতা আহত হনুমান কে উদ্ধার করলো বিবিসিএফ কুষ্টিয়া টিম- গড়াই সভ্যতা কুষ্টিয়া কেন্দ্রীয় গোরস্থান মাদ্রাসায় ছাত্র ও শিক্ষকদের ইউনিফর্ম বিতরণ- গড়াই সভ্যতা ক্লুলেস হত্যার রহস্য উদঘাটন করলো কুষ্টিয়া জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিট, আটক ৩- গড়াই সভ্যতা কুষ্টিয়া জেলা পুলিশের নতুন সাইবার ক্রাইম ইউনিট চালু- গড়াই সভ্যতা কুষ্টিয়া কুমারখালীতে লস্কর গ্রুপ ও মন্ডল গ্রুপের সংঘর্ষ নিহত ১ আহত ১০-গড়াই সভ্যতা দুই এসআই নিহত: গাড়ি চালাচ্ছিলেন আসামি-গড়াই সভ্যতা কুষ্টিয়ায় হত্যা মামলায় ২ জনের যাবজ্জীবন ১ জনার আমৃত্যু কারাদন্ড- গড়াই সভ্যতা

জনবলের অভাবে খালি পড়ে আছে ঢাকা মহানগর জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউ-গড়াই সভ্যতা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ৮ আগস্ট, ২০২১
  • ১২৯ বার পঠিত

চারদিকে হাহাকার, আইসিইউ, এইচডিইউ বেড নেই। হাসপাতালে হাসপাতালে ঘুরেও সংকটাপন্ন রোগীদের জন্য মিলছে না আইসিইউ ও এইচডিইউ বেড। কিন্তু খোদ রাজধানীর ঢাকা মহানগর জেনারেল হাসপাতালে স্থাপন করা পাঁচটি আইসিইউ ও ১৫টি হাই ডিপেনডেন্সি ইউনিট (এইচডিইউ) বেড অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। জনবলের অভাবে এগুলো ব্যবহার করা যাচ্ছে না।

রাজধানীর পুরান ঢাকার নয়াবাজারে তিনতলা বিশিষ্ট ১৫০ শয্যার এই হাসপাতালটির মালিক ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)। তবে জনবল, ওষুধসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক যন্ত্রপাতি দেয়ার কথা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের। জনবল চেয়ে বারবার চিঠি দেয়া হলেও অধিদপ্তর তা দিচ্ছে না। এতে হতাশ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় বাসিন্দারা।

হাসপাতালটিকে করোনা রোগীর সেবা চালু করতে ৫৬ জন মেডিকেল অফিসার ও ৬০ জন নার্স চাওয়া হয়েছে। এখানে সাধারণ ওয়ার্ডে ৪০ জন ডাক্তার, ৪০ জন নার্স এবং আইসিইউর জন্য ১৬ জন ডাক্তার ও ২০ নার্স কাজ করবেন। এছাড়া কিছু টেকনোলজিস্ট, ওয়ার্ড বয় ও ক্লিনারের চাহিদাও দেয়া হয়েছে। কিন্তু চাহিদা অনুযায়ী জনবল পাওয়া যাচ্ছে না।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সংশ্লিষ্টরা বলছেন, করোনার শুরুতে অন্যান্য জেনারেল হাসপাতাল থেকে অনেক জনবল করোনা হাসপাতালে প্রেষণে দেয়া হয়েছে। এখন ওই হাসপাতালে জনবল দেয়ার মতো লোকবল নেই। অন্যান্য জেনারেল হাসপাতালেও জনবল সংকট দেখা দিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে করণীয় ঠিক করতে শিগগির বৈঠকে বসবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

গত ২২ এপ্রিল ডিএসসিসি মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস পরিদর্শনে গিয়ে ৮ থেকে ১০ দিনের মধ্যে এ হাসপাতালে রোগী ভর্তি শুরু হবে বলে আশ্বাস দিয়েছিলেন।

সম্প্রতি সরেজমিনে দেখা যায়, এখন তিনতলা বিশিষ্ট হাসপাতালটির শুধু বহির্বিভাগে রোগীদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। হাসপাতালের দ্বিতীয় তলায় করোনা রোগীদের চিকিৎসায় স্থাপন করা শয্যাগুলোতে কয়েক স্তরে ধুলাবালি পড়ে আছে। এর মধ্যে প্রতিটি কক্ষের দরজায় তালা লাগানো। চিকিৎসক এবং নার্সদের কক্ষগুলোতেও তালা লাগানো। তবে আইসিইউ ইউনিট বেশ পরিষ্কার। শয্যা এবং যন্ত্রগুলো সারিবদ্ধভাবে সাজানো। সেখানে কাউকে দায়িত্ব পালন করতে দেখা যায়নি।
ঢাকা মহানগর জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক প্রকাশ চন্দ্র রায় বলেন, ‘গত এপ্রিলের শুরুতে ৫৬ জন মেডিকেল অফিসার ও ৬০ জন নার্সসহ টেকনোলজিস্ট, ওয়ার্ডবয় ও ক্লিনারের চাহিদা দেয়া হয়েছিল। কিন্তু এখন পর্যন্ত তারা তা দেননি। পরে জনবল আরও কমিয়ে চেয়েছি, তাও পাইনি। এ নিয়ে শুধু চিঠি চালাচালিই চলছে।’

ঢাকা মহানগর জেনারেল হাসপাতালটি পরিচালনা করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগ। এই বিভাগের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. মো. শরীফ আহমেদ বলেন, ‘হাসপাতালটিতে করোনা চিকিৎসা দেয়ার জন্য সব ব্যবস্থা রয়েছে। এখন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বা স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে প্রয়োজনীয় জনবল পেলেই চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু করা যাবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2019 daily gorai
Theme Customized BY LatestNews