1. admin@dailygoraishobvotha.com : dailygorai : Salim Takku
শুক্রবার, ২৯ অক্টোবর ২০২১, ১২:১৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
গুগল-আমাজন-ফেসবুকের নিবন্ধন বাধ্যতামুলক,রাজস্ব আদায়ের নির্দেশ- গড়াই সভ্যতা সাকিবের স্ত্রীর ইটের জবাবে মাশরাফীর ভাইয়ের পাটকেল- গড়াই সভ্যতা রাজধানীতে ১২ থেকে ১৭ বছরের শিক্ষার্থীদের টিকাদান শুরু ১ নভেম্বর- গড়াই সভ্যতা স্মার্টফোন থেকে নির্গত আলোতে চোখের সর্বনাশ- গড়াই সভ্যতা কুয়াকাটা যেতে আর ফেরি পার হতে হবে না, পায়রা সেতুর উদ্বোধন- গড়াই সভ্যতা বিএফইউজে’র সভাপতি ওমর ফারুক, মহাসচিব দীপ আজাদ- গড়াই সভ্যতা শারজাহতে টি-টোয়েন্টি অভিষেক হচ্ছে বাংলাদেশের- গড়াই সভ্যতা যেভাবে ইকবাল কে ধরলেন তিন গোয়েন্দা- গড়াই সভ্যতা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হামলায় নিহত বেড়ে ৭- গড়াই সভ্যতা কুষ্টিয়ায় লক্ষ টাকার স্বর্ণলঙ্কার নিয়ে লাপাত্তা রিক্সা চালক- গড়াই সভ্যতা

প্রেমিকাকে হত্যার লোমহর্ষক বর্ণনা দিল ১৭ বছরের প্রেমিক

সেলিম আহামেদ তাক্কুঃ
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১৬ জুলাই, ২০২১
  • ১১০ বার পঠিত

সেলিম আহামেদ তাক্কুঃকুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় ঘরে ঘুমিয়ে থাকা উম্মে ফাতেমা (১৪) নামের এক স্কুলছাত্রীর লাশ গ্রামের ভুট্টা ক্ষেত থেকে উদ্ধারের ঘটনায় ১৭ বছর বয়সী আপন নামের এক কলেজছাত্রকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ফাতেমার সঙ্গে দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল আপনের। সারপ্রাইজ দেওয়ার কথা বলে ডেকে নিয়ে চোখ বেঁধে ফাতেমাকে আপন হত্যা করে বলে জানিয়েছে পুলিশ।বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) কুষ্টিয়া পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার খাইরুল আলম। তিনি বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে আপনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে হত্যার কথা স্বীকার করেছে আপন। গ্রেফতার আপন মিরপুর পৌরসভার কুরিপোল গ্রামের রংমিস্ত্রি মিলনের ছেলে। সে আমলা সরকারি কলেজের ছাত্র। বুধবার (১৪ জুলাই) বিকালে ভুট্টাক্ষেত থেকে উম্মে ফাতেমার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ফাতেমা মিরপুর পৌরসভার তালতলা এলাকার খন্দকার সাইফুল ইসলামের মেয়ে।আপনের জবানবন্দির বরাত দিয়ে মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম মোস্তফা বলেন, ‘উম্মে ফাতেমা মিরপুর উপজেলার বর্ডার গার্ড পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী। আপন মিরপুর উপজেলার আমলা সরকারি কলেজের ছাত্র। দুজনের মধ্যে দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক। মেয়েটি আপনকে অনেক বিশ্বাস করতো। একপর্যায়ে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। কিন্তু আপন বিয়ে করতে রাজি হয়নি। তখন মেয়েটি বলে বিয়ে না করলে আত্মহত্যা করবে এবং আপনের নাম লিখে যাবে। এতে ভয় পেয়ে যায় আপন। সাত দিন আগে মেয়েটিকে হত্যার পরিকল্পনা করে সে।’ওসি বলেন, ‘মঙ্গলবার রাত ১টা ৫২ মিনিটে মেয়েটিকে ফোন করে রাত ২টা ৫০ মিনিটে বাড়ি থেকে বের হতে বলে আপন। এর মধ্যে জায়গা দেখে আসে কোথায় নিয়ে হত্যা করবে। প্রথমে একটি ইটভাটায় নিয়ে যায়। সেখানে লোকজন থাকায় ভুট্টাক্ষেতে নিয়ে যায়। তখন আপন বলে তোমার জন্য সারপ্রাইজ আছে। কিন্তু সারপ্রাইজ পেতে হলে চোখ বাঁধতে হবে। তখন মেয়েটির ওড়না দিয়ে চোখ বেঁধে ফেলে আপন। এ সুযোগে পকেট থেকে চাকু বের করে বুকে পেটে আঘাত করে। একই সঙ্গে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে দেয়। সবশেষে মেয়ের গলা কেটে মৃত্যু নিশ্চিত করে। পরে চাকু ভেঙে ফেলে দেয়। ওড়নাটি বাড়িতে এনে পুড়িয়ে ফেলে। হত্যাকাণ্ডের পর আপনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ইতোমধ্যে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে আপন।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2019 daily gorai
Theme Customized BY LatestNews