1. admin@dailygoraishobvotha.com : dailygorai : Salim Takku
শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ০৪:২৩ অপরাহ্ন

অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইল কিভাবে প্রতিষ্ঠা হয়েছিল?

সেলিম অাহামেদ তাক্কু
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২০ মে, ২০২১
  • ৮৫ বার পঠিত

প্রথম বিশ্বযুদ্ধে তুরস্কের উসমানীয় খিলাফত পতনের পর ফিলিস্তিনসহ বেশিরভাগ আরব এলাকা ইংল্যান্ড- ফ্রান্সের দখলে চলে যায়। ১৯১৭ সালের ২রা নভেম্বর বৃটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী আর্থার জেমস বালফোর ইহুদীবাদীদেরকে লেখা এক চিঠিতে ফিলিস্তিনের ভূখন্ডে একটি ইহুদী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি ঘোষণা করেন, যা ইতিহাসে বেলফোর ডিকলারেশন নামে পরিচিত। বেলফোর ঘোষণার মাধ্যমে ফিলিস্তিন এলাকায় ইহুদিদের আলাদা রাষ্ট্রের সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয় এবং বিপুলসংখ্যক ইহুদি ইউরোপ থেকে ফিলিস্তিনে এসে বসতি স্থাপন করতে থাকে।

১৯০৫ থেকে ১৯১৯ সাল পর্যন্ত ফিলিস্তিনে ইহুদীদের সংখ্যা ছিল মাত্র কয়েক হাজার। কিন্তু ১৯১৪ সাল থেকে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে ১৯১৮ সাল পর্যন্ত বৃটিশদের সহযোগিতায় ফিলিস্তিনে ইহুদীদের সংখ্যা ১৫ হাজারে উন্নীত হয়। এরপর প্রকাশ্যে ফিলিস্তিনে ইহুদী অভিবাসীদের ধরে এনে জড়ো করা শুরু হলে ১৯১৯ থেকে ১৯২৩ সাল নাগাদ ফিলিস্তিনে ইহুদীদের সংখ্যা ৩৫ হাজারে পৌঁছে যায়। ১৯৩১ সালে ইহুদীদের এই সংখ্যা প্রায় ৪ গুণ বৃদ্ধি পেয়ে ১ লাখ ৮০ হাজারে পৌঁছায়। এভাবে ফিলিস্তিনে ইহুদী অভিবাসীর সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বাড়তে থাকে এবং ১৯৪৮ সালে সেখানে ইহুদীদের সংখ্যা ৬ লাখে উন্নীত হয়।বৃটিশরা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ফিলিস্তিন ছেড়ে যাওয়ার সময় ঈসরাইল নামে একটি রাষ্ট্রের ঘোষণা দিয়ে যায়, যা শুরু থেকেই আরবরাষ্ট্র গুলো বিরোধিতা করতে থাকে। যা পরবর্তীতে ইহুদী ও আরব মুসলিমদের যুদ্ধে পর্যন্ত জড়ায় । এপর্যন্ত সর্বমোট আরবদের সাথে ইহুদীদের চারটি যুদ্ধ হয়েছে।

১, ১৯৪৮ আরব ঈসরাইল যুদ্ধ। এই যুদ্ধে ব্রিটিশ ও ফ্রান্সের প্রত্যক্ষ মদদে ইউরোপ থেকে ইহুদীদের কে ফিলিস্তিনে জড়ো করে। এবং ৯ মাস যুদ্ধের পর ইহুদীরা ফিলিস্তিনের ৫০% এলাকা দখল করতে সক্ষম হয় এই যুদ্ধ বিরতির মাধ্যমে সমাপ্তি হয়।

২, ১৯৫৬ সালে দ্বিতীয় আরব ঈসরাইল যুদ্ধ। যুদ্ধ বিরতি শেষ হওয়ার পর পুনরায় যুদ্ধ শুরু হয়।

৩, ১৯৬৭ সালে তৃতীয় আরব ঈসরাইল যুদ্ধ। এই যুদ্ধে ঈসরাইল আনুষ্ঠানিক ভাবে যুদ্ধ শুরুর আগেই মিশর, সিরিয়া, জর্ডানের এয়ারপোর্ট আক্রমণ করে সিনাই উপত্যকা, জেরুজালেম, গোলান পর্বত মালা দখল করে নেয়। এই যুদ্ধ মাত্র ৬ দিন চলে। এই যুদ্ধে আরব রাষ্ট্র গুলো মারাত্মক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

৪, ১৯৭৩ সালে চতুর্থ আরব-ঈসরাইল যুদ্ধ, এই যুদ্ধে মিশর ও সিরিয়া ঈসরাইলের বিরুদ্ধে মারাত্মক ভাবে যুদ্ধ চালিয়ে যায়। পরবর্তীতে জর্ডান, সৌদি আরব, আলজেরিয়া, ইরাক, কিউবা যুদ্ধে যোগ দেয়। কিন্তু ঈসরাইল মারাত্মক ভাবে ক্ষতির মুখে পরে একপর্যায়ে পরমাণু বোমা হামলা চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়, এবং এই সিদ্ধান্ত তারা আমরিকাকে জানায়। পরবর্তীতে আমরিকার মধ্যস্থতায় যুদ্ধের সমাপ্তি হয়। একপর্যায়ে ঈসরাইল সিনাই উপত্যকা মিশরকে ফেরত দেয়।

এছাড়াও লেবাননের হিজবুল্লাহর সাথে ২০০৬ সালে এবং গাজা উপত্যকার হামাসের সাথে ২০১৪ সালে ঈসরাইল যুদ্ধে জড়িয়ে ছিল।

সেলিম অাহাম্মেদ তাক্কু

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© All rights reserved © 2019 daily gorai
Theme Customized BY LatestNews